Software & Tools

আপনার চেহারায় অন্য জনের কুকর্ম !! ফেসে যাচ্ছেন নাহ তো??

আজকের টেকনোলজি খবরে থাকছে ডিপ ফেক সম্পর্কে। এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আপনার ফেইস বসানো সম্ভব কোনো পর্ণ তারকার ফেইস এর উপর, কোনো হলিউড বলিউড এর নায়কের ফেইস এর উপর, মার্ডার করে পালানোর সময় ধারণ করা খুনির ভিডিওর উপর। এভাবে ফেসে যেতে পারেন আপনি যেকোনো যায়গায়। অতীতে তো শুধু ফটোশপ দিয়ে ছবিতে ইডিট করা যেতো কিন্তু মুখের ভংগী না মিলার কারনে তা বুঝা যেতো। কিন্তু এইনক্ষেত্রে মুখের ভাব ভংগী সম্পুর্ন মিলে যায় এবং বুঝা যাওয়া প্রায় অসম্ভব। এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবো আজ…

বর্তমান এবং ভবিষ্যতের টেকনোলজিতে একক রাজত্ব করতে যাচ্ছে Artificial intelligence (Ai Technology) এই প্রযুক্তিতে তৈরি করা হয় বিভিন্ন প্রোগ্রাম যা নিজে নিজে মানুষের মত চিন্তা করতে সক্ষম, আপনাকে চিনতে সক্ষম, আপনার সাথে নিজে নিজে কারো সাহায্য ছাড়াই কথা বলতে সক্ষম। প্রাথমিক অবস্থাতেই এই প্রযুক্তি ব্যাপক সারা ফেলে দিয়েছে। আর যখন ফেসবুক,গুগোলের মত জায়েন্ট কোম্পানিগুলো তাদের সবচেয়ে বেডি ইনভেস্ট এই ল্রযুক্তিতে করছে ভাবুন আগামী দশ বছর পর এই টেকনোলজি কেমন হতে চলেছে??

এই প্রযুক্তি ব্যবহার করেই তৈরি করা হয় ফেইস ডিটেক্টর প্রোগ্রাম। আপনি যখন কোনো ফোনে ফেইস লক সেট করেন তখন সে অন্য কারো চেহারার সামনে নিলে কেন লক খুলে দেয় নাহ?? কারণ ওই প্রোগ্রাম টা চিনে যে এটা আপনি নাহ বরং অন্যকেউ। কিভাবে?? আপনি যখন ফেইস লক টা সেট করতে যান তখন ওই প্রোগ্রাম টা আপনার চেহারার প্যাটার্ন টা সেইভ করে রাখে। আপনার দুই আই-ব্রু এর এর দুরত্ব, আই-ব্রু গুলো কেমন, আই-ব্রু থেকে আপনার নাক টা কিভাবে নিচে নেমে এসেছে সেই প্যাটার্ন, নাক টার আকৃতি কেমন এমন আরো অনেক কিছু। সোজা ভাবে বলতে গেলে আপনার পুরো ফেইসটার একটা প্যাটার্ন যা কারো সাথে কারো মিলে নাহ।

ডিপ ফেইস প্রযুক্তি আপনার মুখের এই প্যাটার্ন গুলো কালেক্ট করে নেয় এবং তা অন্য কারো ভিডিওর অন্য কারো মুখের উপর প্রতিস্থাপন করে দেয়। প্রথমে আপনাকে আপনার মুখের সকল ভাব ভংগি ওই প্রোগ্রামকে শিখিয়ে দিতে হয়। এবং এর পরই আপনার ছবি যেকোনো স্থানে প্রতিস্থাপন করা সম্ভব। এর যেমন রয়েছে ভালো দিক তেমন রয়েছে খারাপ দিক।

বিভিন্ন সেলিব্রেটিরা / খুব ব্যস্ত মানুষ গুলো একসাথে অনেক লাইভ কনফারেন্স এটেন্ড করতে পারে নাহ। কিন্তু এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে তার অন্য কাউকে দিয়েও এই কাজ করাতে পারবে। এতে দর্শক দের বিন্দু মাত্র সন্দেহ হবে নাহ যে এইটা অন্য কেউ।

Deep Fake
এই ব্যাক্তির ফেস ডিপ ফেইক টেকনোলজি ব্যবহারের মাধ্যমে Hollywood এর ক্যারেক্টর Hulk এর সাথে জুড়ে দেয়া হয়েছে

কিন্তু খারাপ দিক ভাবতে গেলে রয়েছে অনেক… যদি কোনো মেয়ের ছবি কোনো পর্ণ ভিডিওর সাথে জুড়ে দেয়া হয় তার ক্যারিয়ার খুব বাজে দিকে চলে যাবে কোনো সেলিব্রেটি / কোনো রাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে যদি কোনো নতুন মুভি / নির্বাচন এর আগে ডিপ ফেইক ব্যবহার করে খারাপ কিছু সৃষ্টি করা হয় তাহলে তার ক্যারিয়ার ও শেষ বললেই চলে। কোনো আসামির খুন করার ফুটেজে যদি অন্য কারো ছবি বসানো হয় সেই ক্ষেত্রে কিন্তু লোকটা খুব বিপদে পড়তে চলেছে। তো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের বিভিন্ন ভাব ভংগির ছবি পাবলিক্যালি ছাড়ার আগে সাবধান।
ধন্যবাদ।

Pirates Of The Caribbean ছবির অভিনেতা Jack Sparrow এর মুখে এই ব্যক্তির Deep Fake Face

inotic-1
News Tech24 – Technology News Online

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button